পুরুষদের প্রস্টেট গ্রন্থি বড় হলে কী করবেন

ছবি: pixabay.com

বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে চুল পেকে যাওয়া দৃষ্টিশক্তি কমে আসা ত্বকে বলিরেখা পড়া এসব অতি পরিচিত বিষয়। প্রবীণ বয়সে এসব বিষয়ের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের নতুন নতুন সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। যেমন প্রবীণ বয়সে পুরুষদের ক্ষেত্রে প্রোস্টেট গ্রন্থি বড় হওয়া একটি অন্যতম সমস্যা। প্রোস্টেট গ্রন্থি বড় হওয়ার কারণে প্রস্রাবে সমস্যা সৃষ্টি হয়।সঠিক সময়ে এর যথাযথ চিকিৎসা না হলে রোগ জটিল আকার ধারণ করতে পারে তখন চিকিৎসা করা কঠিন হয়ে পড়ে সাধারণত 60 থেকে 65 বছরের প্রবীণ ব্যক্তিদের এই সকল সমস্যা বেশি হতে দেখা যায়।

প্রস্টেট গ্রন্থি  কী

প্রোস্টেট গ্রন্থির পুরুষদের প্রজনন তন্ত্রের একটি ছোট গ্রন্থি যা মূত্রনালীর নিচে থাকে। এই গ্রন্থি বীর্য তৈরি ও পরিবহনের সাহায্য করে এবং মূত্র নিয়ন্ত্রণে কাজ করে।

প্রোস্টেট গ্রন্থি বড় হওয়ার কারণে যেসব সমস্যা হয়:

  1. প্রস্রাবে নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারে না। কাপড় চোপড় নষ্ট করে ফেলে।
  2. প্রস্রাব বসে করতে সমস্যা হয়।
  3. প্রাথমিক পর্যায়ে চিকিৎসা না নিলে প্রস্রাব বন্ধ হয়ে যেতে পারে।
  4. জোড়ে চাপ দিয়ে প্রস্রাব করতে গেলে প্রস্রাব আরো বেশি আটকে যায়।
  5. বারবার প্রস্রাব করতে যেতে হয়। বিশেষত রাতের বেলায়।
  6. প্রস্রাবের পরও অসম্পূর্ণ প্রস্রাবের অনুভূতি হয়।

রোগ নির্ণয়

রোগ নির্ণয়ের জন্য আল্ট্রাসোনোগ্রাম করতে হয়। এ ছাড়া এমআরআই, সিটি স্ক্যান প্রভৃতি পরীক্ষা করা হয় সমস্যা নিশ্চিত করার জন্য।

চিকিৎসা

প্রোস্টেট গ্রন্থি ছোট করার জন্য চিকিৎসকগণ ঔষধ দিয়ে থাকেন। নির্দিষ্ট ঔষধ সেবনে সেবনে প্রস্রাবের সমস্যা কমে যায়। আর এতেও ভালো না হলে অপারেশন করতে হয়। তবে অপারেশনের পরও পুনরায় এ গ্রন্থি বড় হওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই নিয়মিত ওষুধ সেবন করতে হয়। আলফা ব্লফার ও ৫-আলফা রিডাক্টেজ  ইনহিবিটর এই দুই ধরনের ওষুধ সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়। তবে কোনো ওষুধই চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া গ্রহণ করা যাবে না।

প্রতিরোধ

  • রাতে ঘুমানোর ঠিক আগে পানি পান বন্ধ করতে হবে।
  • অ্যালকোহল ও ক্যাফেইন জাতীয় দ্রব্য গ্রহণ এড়িয়ে যেতে হবে।