রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে যেসব বিষয় খেয়াল রাখা জরুরি

ইদানিং দেখা যাচ্ছে অল্পবয়সেই অনেকে উচ্চ রক্তচাপে আক্রান্ত হচ্ছেন। নিয়মিত ওষুধ খেয়েও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা যাচ্ছে না। এক্ষেত্রে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে জীবনযাপন পদ্ধতি পরিবর্তন করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।জীবন যাত্রার কিছু ছোট ছোট পরিবর্তন রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। সুপ্রিয় পাঠকবৃন্দ আমাদের আজকের এই পর্বে এমনই কিছু ছোট ছোট বিষয় নিয়ে কথা বলব যা আপনার রক্তচাপ নিয়ন্ত্রনে সাহায্য করবে।

বাড়তি মেদ ঝরানো :

আধুনিক চিকিৎসকদের মতে, মাত্রাতিরিক্ত মেদ উচ্চ রক্তচাপের মূল কারণ। তাই অতিরিক্ত মেদ ঝরাতে পারলে উচ্চ রক্তচাপও সহজে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। সেক্ষেত্রে মেদ কমাতে খাদ্যাভাস ও জীবনযাপন পদ্ধতি পরিবর্তন করুন।

নিয়মিত হালকা শরীরচর্চা :

প্রতিদিন মাত্র ৩০ মিনিট করে হালকা থেকে ভারী শরীরচর্চা করুন। ঘাম ঝরিয়ে হাঁটলে, সাইক্লিং করলে অথবা সাঁতার কাটলে শরীর ফুরফুরে থাকে। সেই সঙ্গে উচ্চ রক্তচাপও নিয়ন্ত্রণে থাকে। তাই নিয়মিত হাঁটার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

খাদ্য তালিকায় পরিবর্তন :

খাদ্য তালিকার পরিবর্তন অত্যন্ত প্রয়োজনীয় বিশেষত উচ্চ রক্তচাপ সমস্যায় যারা ভুগছেন। নিয়মিত পটাশিয়ামসমৃদ্ধ খাবার, শাকসবজি, ফল এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন। সেই সঙ্গে কার্বোহাইড্রেটের পরিমাণ কমিয়ে খাদ্য তালিকায় প্রোটিন যোগ করুন। উচ্চ চর্বিযুক্ত খাবার পরিহার করুন।

সোডিয়াম খাওয়া থেকে বিরত থাকা :

খাবারে কাঁচা লবণ খাওয়া বাদ দিন। রান্নায় যথাসম্ভব লবণ কমিয়ে দিন। এছাড়া প্রক্রিয়াজাত খাবার খাওয়া পরিহার করুন। মোটকথা খাবার লবণ যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুন। প্রাথমিকভাবে কিছুটা স্বাদহীন মনে হলেও পরবর্তীতে তা অভ্যাসে পরিণত হবে।

ধূমপান ছেড়ে দেওয়া :

ধূমপান উচ্চ রক্ত চাপ সৃষ্টি করে এবং অনেক ক্ষেত্রে হার্টস্ট্রক ও ব্রেইন স্ট্রোক এর মূল কারণ। তাই ধূমপান পুরোপুরি ছেড়ে দিতে হবে। তাহলে স্বাভাবিক নিয়মেই হৃদযন্ত্রের উন্নতি হবে। সেই সঙ্গে অ্যালকোহল জাতীয় পানীয়ও পরিহার করতে হবে।

কফি খাওয়া কমানো:

কফি পান ভালো হলেও ঘন ঘন কফি খাওয়ার অভ্যাস পরিবর্তন করুন। অতিরিক্ত কফি পানে উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি বাড়ে।

মানসিক চাপ কমানো :

মানসিক চাপ থেকে উচ্চ রক্তচাপের পরিমাণ বেড়ে যায়। তাই যেসব কারণে মানসিক চাপ বা উদ্বেগ সৃষ্টি হতে পারে এমন সব কর্মকাণ্ড এড়িয়ে চলুন। যারা সবসময় উচ্চাশা করে থাকে তাদের ব্যর্থ হওয়ারও সম্ভাবনা বেশি থাকে এবং মানসিক চাপ সৃষ্টি হতে পারে। তাই রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে উচ্চাশা পরিহার করে, অল্পতে সন্তুষ্ট থাকার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

ঘরেই নিয়মিত রক্তচাপ মাপুন :

বিজ্ঞানের বদৌলতে এখন ঘরে ডিজিটাল মেশিনের মাধ্যমে রক্তচাপ মাপা সম্ভব। তাই ডিজিটাল মেশিন ব্যবহার করে ঘরে রক্তচাপ মেপে নিন। রক্তচাপ কিছুটা কম বেশি হলে খুব বেশি চিন্তার প্রয়োজন নেই। তবে রক্তচাপ খুব বেশি উঠানামার করলে একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের শরণাপন্ন হোন।

সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, এনটিভি অনলাইন; ছবি pixabay.com