সাজদায় দু’আ করার পদ্ধতি

★ প্রথম কথা হলো, সাজদায় দু’আ কবুল হয়। রাসূল (সা.) বলেন, “বান্দা যখন সাজদারত থাকে তখন সে তার রবের সবচে’ নিকটবর্তী হয়। কাজেই তোমরা এ সময়ে বেশি বেশি দু’আ করবে।” (সহিহ মুসলিম ১/৩৫০)
.
★ দ্বিতীয়ত, সাজদায় দু’আ করার জন্য প্রথমে অবশ্যই সাজদার তাসবিহ পড়ে নিতে হবে। সে হিসেবে সুবহানা রাব্বিয়াল আ’লা বা অন্য কোন তাসবিহ (৩ বার) পড়ার পরই দু’আ শুরু করতে হবে। হোক সেটি ফরয, সুন্নাত বা নফল সালাত। অর্থাৎ ফরয সালাতেও সাজদায় দু’আ করা বৈধ।
.
★ তৃতীয়ত, সাজদায় কুরআনের দু’আ পড়া যাবে (তবে তা তিলাওয়াত হিসেবে নয়, দু’আ হিসেবেই পড়তে হবে, তিলাওয়াত হিসেবে পড়তে হাদিসে নিষেধ করা হয়েছে), হাদিসে বর্ণিত দু’আও পড়া যাবে।
.
★ চতুর্থত, আরবি ছাড়া অন্য কোন ভাষায় সাজদায় দু’আ করা জায়েয নয়। শায়খ আবদুল্লাহ জাহাঙ্গীর (রাহ.) তাঁর রাহে বেলায়াত বইতে বলেন, আরবিতে অক্ষম হলে সেক্ষেত্রে মালিকি, শাফি’ঈ ও হাম্বলি মাযহাবের ফকিহগণ (ইসলামি আইনজ্ঞ ব্যক্তিবর্গ) সাধারণভাবে অনারব ভাষায় দু’আ করা বৈধ বলেছেন। হানাফি মাযহাবের ইমামগণও আরবি ভাষায় অপারগ ব্যক্তির জন্য অনারব ভাষায় দু’আ করা বৈধ বলেছেন। তবে পরবর্তী হানাফি ফকিহগণ এটি মাকরূহ বলেছেন। (সারাখসি, আল মাবসূত ১/৩৬-৩৭)
.
★ পঞ্চমত, বর্তমান সালাফি আলিমদের কেউ কেউ বলেন, যেহেতু অনারব ভাষায় দু’আ করার ব্যপারটি নিয়ে আপত্তি আছে তাই ফরয সালাতে অনারব ভাষায় দু’আ না করাই নিরাপদ। তবে নফল সালাতে হতে পারে। যদিও আরবিতেই দু’আ করা উচিত ও এটাই উত্তম। শায়খ আবদুল্লাহ জাহাঙ্গীর (রাহ.) “রাহে বেলায়াত” এ মোটামুটি এমনটিই বলেছেন যে, আরবি দু’আ শেখা শুরু করতে হবে। একান্ত অক্ষম হলে আরবি দু’আ মুখস্থ করার আগ পর্যন্ত বাংলায় দু’আ করা যাবে, তাহাজ্জুদ ও নফল সলাতে।
.
★ ষষ্ঠত, আমাদের উচিত কুরআন ও হাদিসে বর্ণিত দু’আগুলোই বেশি বেশি পড়া। যেহেতু আলিমগণের আপত্তি আছে সেহেতু মাতৃভাষা বাংলায় তথা অনারব ভাষায় দু’আ না করা। কারণ সাজদায় দু’আ করা একটি গৌণ ইবাদত, সেটির কারণে মূল ইবাদত (সলাত) প্রশ্নবিদ্ধ করা যাবে না।
.
★ আসলে আমরা কেউই অক্ষম নই ইনশাআল্লাহ। একটু চেষ্টা করলেই (কুরআন সুন্নাহয় বর্ণিত) আরবি কিছু দু’আ মুখস্থ করে ফেলতে পারি। এটি মোটেও কঠিন কোন কাজ নয়। সবচেয়ে বেস্ট হয়, ব্যাপক অর্থবোধক দু’আগুলো মুখস্থ করা। যেমন : “রাব্বানা আতিনা ফিদদ্দুনয়া……আযাবান নার” এই দু’আটি চমৎকার! এটাতে দুনিয়া ও আখিরাতের সব কল্যাণ চাওয়া হচ্ছে।

Source: Islamic Perception (fb.com/Islamicperception)